মোটরসাইকেলের জন্য কলেজছাত্র সানিকে গলাকেটে হত্যা

মোটরসাইকেল হাতিয়ে নিতেই রাজশাহীর চারঘাটে কলেজছাত্র সাইফ ইসলাম সানিকে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তারকৃত দুই যুবক প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এমন তথ্য দিয়েছে পুলিশকে।

রবিবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে রাজশাহীর পুলিশ সুপার মো. শহিদুল্লাহ এ কথা জানান।

তিনি বলেন, চেতনানাশক খাওয়ানোর পর সানিকে গলাকেটে হত্যা করে গ্রেপ্তারকৃত সাগর ও শাকিব।

তিনি জানান, নিহত সানির একটি ১০০ সিসির মোটরসাইকেল ছিল। মাদকসেবী সাকিব ও সাগর মাদকের টাকা জোগাড় করতে তার মোটরসাইকেলটি নিতেই সানিকে হত্যা করে।

দুজনের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে পুঠিয়ার বানেশ্বর বাজারের একটি গ্যারেজ থেকে সানির মোটরসাইকেলটিও উদ্ধার করা হয়েছে। আর সাকিবের বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়েছে মোটরসাইকেলের চাবি।

রবিবার দুপুরে আসামিদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এসপি শহিদুল্লাহ জানান, শনিবার সানির মরদেহ উদ্ধারের পর বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে চারঘাট মডেল থানা পুলিশ। অভিযান চলাকালে মৌগাছী থেকে শাকিব (২৪) ও সাগরকে (২৩) গ্রেপ্তার করা হয়। শাকিব পুঠিয়ার বানেশ্বর থান্দারপাড়া এলাকার ইদল আলীর ছেলে ও সাগর একই এলাকার মৃত খায়েরের ছেলে।

গত শুক্রবার সাইফ ইসলাম সানিকে কাজের কথা বলে সাকিব লাল রংয়ের হিরো ১০০ সিসি মোটরসাইকেলসহ ডেকে নিয়ে যায়। এরপর থেকেই সানি নিখোঁজ ছিল।

শনিবার সানির মরদেহ পাওয়া যায় চারঘাট মডেল থানাধীন মাড়িয়া মসজিদ পাড়ার মোশারফ হোসেনের কলা বাগানে। মরদেহ উদ্ধারের পর সন্দেহভাজন হিসেবে সাকিবকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়।

এদিকে, সাকিব গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদে সে মামলার ঘটনার সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। এছাড়া তার সহযোগী আসামি সাগরের নাম-ঠিকানা জানায়। এরপর সাগরকেও গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

দুজনেদের স্বীকারোক্তি ও দেখানো মতে পুঠিয়া থানাধীণ বানেশ্বর বাজারের আক্কাস আলীর গ্যারেজ হতে সানির মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করা হয়। সাকিবের শয়ন ঘরের বিছানার নিচ থেকে মোটর সাইকেলের চাবি উদ্ধার করা হয়।

তারা সানির মোটরসাইকেল হাতিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী হত্যাকাণ্ড ঘটনায় বলে পুলিশের দাবি।

এর আগে শনিবার দুপুরে চারঘাট মডেল থানাধীন মাড়িয়া মসজিদ পাড়ার কলাবাগান থেকে সানির মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তিনি পুঠিয়ার বানেশ্বর থান্দারপাড়া গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে। সানি নাটোর এনএস কলেজে হিসাববিজ্ঞান বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র ছিলেন।